১৩ই ফেব্রুয়ারি ২০২০……….. চালু হয়ে যাচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোরেল সেক্টর ফাইভ থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত মোট ছয়টি স্টেশন থাকবে সেগুলি হল সেক্টর ফাইভ, করুণাময়ী, সেন্ট্রাল পার্ক, সিটি সেন্টার, বেঙ্গল কেমিক্যাল এবং সল্টলেক স্টেডিয়াম।

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় ভাড়া , ২ কিলোমিটার পর্যন্ত ভাড়া ৫ টাকা৷ ৫ কিলোমিটার পর্যন্ত ভাড়া ১০ টাকা৷ ১০ কিলোমিটার পর্যন্ত ভাড়া ২০ টাকা৷ ১৬.৫ কিলোমিটার পর্যন্ত ভাড়া ৩০ টাকা ৷

#কলকাতা_ইস্ট_ওয়েস্ট_মেট্রো প্রথম ধাপে সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত প্রায় ৫.৮ কিলোমিটার পথে চালানো হবে মেট্রো রেল। সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত থাকছে ৬ টি স্টেশন।

#কলকাতা_মেট্রো রতিটি স্টেশনে থাকছে স্ক্রিন ডোর , যা আত্মহত্যা রুখতে এধরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে ,ট্রেন প্লাটফর্মে এলেই খুলবে ট্রেনের দরজা ।

#kolkata সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত মেট্রো চলাচলের জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পূর্ণ। প্রথম ধাপে সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত প্রায় ৫.৮ কিলোমিটার পথে চালানো হবে মেট্রো রেল। সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত থাকছে ৬ টি স্টেশন।

১৩ ফেব্রুয়ারি চালু হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো

১৯৮৪-র অক্টোবরে কলকাতায় চালু হয়েছিল দেশের প্রথম মেট্রো। প্রথম মেট্রোর চালুর ৩৬ বছর পর কলকাতার দ্বিতীয় মেট্রোর উপস্থিথি এই “ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো”।

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর একাংশ গঙ্গার নীচ দিয়ে , তবে ওই অংশের মেট্রো এখনই চালু হচ্ছে না। হাওড়া ময়দান থেকে হাওড়া স্টেশন এবং গঙ্গার নীচ দিয়ে এই মেট্রোর পশ্চিম প্রান্তের অংশ ডালহৌসি / বিবাদী বাগকে জুড়বে, কিছুদিনের মধ্যেই হাওড়া এবং দ্বিতীয় বিবেকানন্দ সেতুর পরে এ বার মাটির নীচ দিয়ে দুই জেলা ও শহর যুক্ত হতে চলেছে।

২০০৯ এর ২৩ ফেব্রুয়ারি এই প্রকল্পের শিলান্যাস হয়। ১৪.৭ কিলোমিটার লম্বা এই প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছিল ৪৮৭৪ কোটি টাকা, এবং তখন ঠিক হয়েছিল এই রুটে মেট্রো চলবে ২০১৪ -র অক্টোবরে।

অর্থাৎ নির্ধারিত সময়সীমার ছয় বছরের বেশি সময় লাগল।

দমদম থেকে টালিগঞ্জ পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটারের কাজ শেষ হতে সময় লেগেছিল ২৩ বছর। ভবানীপুর থেকে এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত ৩.৪ কিলোমিটার রাস্তার সময় লেগেছিল ১২ বছর।