পঞ্চগণি

পঞ্চগণি মহারাষ্ট্র রাজ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন কেন্দ্র। পশ্চিমঘাট পর্বতের সাহিয়াদ্রি রেঞ্জে অবস্থিত পঞ্চগণি একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র।। এটি টেবিল ল্যান্ড হিসেবেও পরিচিত। পঞ্চগণি পর্যটন কেন্দ্রটি সাতারা জেলায় অবস্থিত। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এর উচ্চতা ১২৯৪ মিটার। এটি মহারাষ্ট্রের অন্যতম একটি গুরত্বপূর্ণ শৈল শহর। মহারাষ্ট্রের একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র পঞ্চগণি। পশ্চিমঘাট পর্বতের এই অংশে রয়েছে স্বর্গের সৌন্দর্য্য। চারিপাশটা পাহাড়,জলপ্রপাত, উপত্যকা ও তৎসহ সুন্দর ছবির মতো একটা পটভূমি বর্তমান। পর্যটকদের পর্যটনকেন্দ্র বাছার ক্ষে্ত্রে অগ্রাধিকার পায় পঞ্চগণি। এখানে প্রচুর ভারতীয় সিনেমা বিশেষ করে হিন্দি ও মারাঠা সিনেমার শুটিং হয়েছে। একসময় পরিচালকদের শুটিং করার ক্ষেত্রে এটি অগ্রাধিকার পেত। এখানে একটু আগে আসার চেষ্ঠা করবেন। অধিকাংশ হোটেলগুলিতে সকাল ৯.০০টায় চেক আউট। এটি নাসিক থেকে ৩১৬ কিমি,পুনে থেকে ৯৯ কিমি,মহাবালেশ্বর থেকে ২০ কিমি,ইলোরা থেকে ৩৪৫ কিমি, আহমেদনগর থেকে ২১৪ কিমি,মুম্বাই থেকে ২৪২ কিমি,কোলাপুর থেকে ১৭০কিমি,নবি মুম্বাই থেকে ২২১ কিমি,লোনেভালা থেকে ১৬২ কিমি,ঔরাঙ্গাবাদ থেকে ৩২৮ কিমি,সোলাপুর থেকে ২৬৭ কিমি,গোয়া থেকে ৩৮৯ কিমি দূরে অবস্থিত।এখানে প্রচুর আকর্ষণীয় ঘোরার জায়গা বর্তমান। সারা বছর প্রচুর পর্যটক এখানে ঘুরতে আসেন।

পর্যটকরা এখানে সপ্তাহান্তের ছুটি কাটানোর জায়গা হিসেবে ঘুরতে আসেন। বোম্বে বা পুনে থেকে এখানে ছুটি কাটাতে আসেন। শুধু ছুটিই নয় হানিমুন উপলক্ষেও দুরদূরান্ত থেকে এখানে মানুষ আছেন। এটি আশেপাশের কাছাকাছি বেশ কয়েকটি পর্যটন কেন্দ্রের জন্য বিখ্যাত। এখানকার টেবিল ল্যান্ড,পার্শি পয়েন্ট, ধোবি জলপ্রপাত, হাতির মাথা পাহাড়,হেলেন পয়েন্ট,ভেন্না প্রতাপগড় দূর্গ, লিঙ্গমালা জলপ্রপাত সহ আশেপাশের সবুজ ছবির মতো অনেক পর্যটন কেন্দ্র বর্তমান। এটি মহারাষ্ট্রের অন্যতম সেরা পর্যটন কেন্দ্র। সারাবছর এখানে প্রচুর পর্যটক আসেন। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য সমৃদ্ধ পশ্চিমঘাট পর্বতের এটি একটি আকর্ষণীয় জায়গা।

পঞ্চগণিতে ব্যবহৃত ভাষা : মারাঠি,হিন্দি।

স্থানীয় পুলিশ স্টেশন

  • পঞ্চগণি পুলিশ স্টেশন,(যোগাযোগ-০২১৬৮২৪০৩৩৩)
  • নতুন পুলিশ স্টেশন পঞ্চগণি

হসপিটাল

  • প্রাইমারী হেল্থ সেন্টার
  • প্রাইমারি হেল্থ সেন্টার, পঞ্চগণি

কাছাকাছি বাজার

·        পঞ্চগণি মার্কেট

  • ·        ডঃ বমির বিল্লিমরিয়া মার্কেট
  • ·         স্ট্রবেরী মার্কেট
  • ·        বুদ্ধা বাজার
  • ·        শিবাজি সার্কেল মার্কেট

কি জিনিষ কিনবেন?

  • কাঠের হাতের কাজ,
  • চামড়ার জিনিষ,
  • ফলের জিনিষ
  • ইত্যাদী

পোস্ট অফিস

  • ·        পোস্ট অফিস,যোগাযোগ-০৯৫৮৬৭৬৯৬৫০
  • ·        ইন্ডিয়া পোস্ট
  • ·        পোস্ট অফিস দপয়ারি

হোটেল/গেস্ট হাউজ

পোরবন্দরে থাকার জন্য কিছু হোটেল ও গেস্টহাউজ রয়েছে। ঘরের ভাড়া ৪৫০ টাকা থেকে শুরু হয়ে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে। এখানে যে হোটেল ও ধর্মশালা গুলি রয়েছে তার ভাড়া ১০০০ টাকার কম। সিজনে এখানে আগে থেকে বুক করলে ভাল।

কিছু হোটেল/গেস্টহাউজের নাম

  • হোটেল রাহিল প্লাজা
  • হোটেল প্যারাডাইস
  • সামার প্যালেস
  • হোটেল পারিজাত
  • পঞ্চগণি ইন
  • লজ সুবিধা
  • পঞ্চগণি হিল ভিলা
  • স্ট্রবেরী হিল রিসোর্ট
  • অ থিম পার্ক এন্ড রিসোর্ট
  • জুয়ি রেসিডেন্সি
  • সাই প্যালেস
  • ঐশ্বরিয়া হোটেল
  • ভ্যালি ভিউ রেসিডেন্সি পঞ্চগণি
  • শ্রী বালাজি বিশ্রাম গ্রুহা, পঞ্চগণি
  • হোটেল মাউন্টেন টপ কটেজ
  • হোটেল পঞ্চগণি ক্রাউন
  • হোটেল দ্য সিগনেচার গেস্ট
  • হোটেল কিংস ল্যান্ড
  • হোটেল ডি এস কে ভ্যালি ইন
  • হোটেল জে কে এক্সিলেন্সি
  • হোটেল বাকরাতুন্ডা

* হোটেল সক্রাংন্ত কোনো ভুল তথ্য বা কোনো ভুল ব্যবহার হয়ে থাকলে তার দায় ask2q.com এর উপর বর্তাবে না।

সিডনি পয়েন্ট পঞ্চগণি , মহারাষ্ট্র

পঞ্চগণিতে যাওয়ার সেরা সময়

গরমে এখানে তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রী থেকে ৩৮ ডিগ্রীর আশেপাশে থাকে। শীতে গড় তাপমাত্রা ১৫-৩০ ডিগ্রী পর্যন্ত হয়। শীতে ঘুরতে বেশী ভাল লাগবে। কারণ শীতের আবহাওয়া মনোরম।

গাড়িতে স্থানীয় ভ্রমণ

আপনি স্থানীয় আশেপাশের বা কিছুটা দূরের পর্যটন কেন্দ্রে ঘুরতে চাইলে সহজেই গাড়ী পেয়ে যাবেন। গাড়ীর ভাড়া এখানকার নির্দিষ্ট ধাপে ঠিক করা আছে। যেমন ক) টাটা ইন্ডিকা-প্রতি কিমি ৮.৫০ টাকা, খ)টাটা ইন্ডিগো/মারুতি সুইফ্ট প্রতি কিমিতে ৯.৫০ টাকা, গ)ট্যাভেরা প্রতি কিমিতে ১১ টাকা,ঘ)ইনোভা প্রতি কিমিতে ১২ টাকা, এর সঙ্গে চালকের জন্য বরাদ্দ ৩০০ টাকা। আপনি সারা দিন ধরে গাড়ীতে ঘুরতে পারেন।  অবশ্য দুরবর্তী ঘোরার ক্ষেত্রে টাকাটা একটু বেশী হতে পারে।

স্থানীয় ঘোরার জায়গাঃ

টেবিল ল্যান্ড

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল টেবিল ল্যান্ড। কিছু ব্যক্তি বলেন টেবিল ল্যান্ড হল পঞ্চগণির সেরা পর্যটন কেন্দ্র। এখানে আপনি সুন্দর ও অসাধারন সৌন্দর্য্যের স্বাক্ষী থাকবেন।এখানে প্রচুর পর্যটক আসেন। এটি পাহাড় দ্বারা আবৃত। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এর উচ্চতা ১৩৮৭ মিটার। এটি এশিয়া মহাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাহাড় সমৃদ্ধ মালভূমি। এখান থেকে কৃষ্ণা নদীর অববাহিকার অসাধারণ সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারবেন। এখান থেকে আপনি ডেভিল’স কিচেন ও রাজপুরী গুহার সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারবেন।  

পার্শি পয়েন্ট

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে ভরপুর এটি পঞ্চগণির একটি অসাধারন জায়গা। পর্যটকরা এখান থেকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের স্বাক্ষী থাকতে পারবেন। প্রকৃতি প্রেমীরা এখান থেকে সবুজ অসাধারণ কৃষ্ণা উপত্যকা তৎসহ দম দাম লেকের সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারবেন। এটি পঞ্চগণিতে মহাবালেশ্বর রোডের উপর অবস্থিত।  

এলিফ্যান্ট হেড পয়েন্টস, পঞ্চগণি

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে ভরপুর এটি একটি অসাধারন জায়গা। একে নিডলস্ পয়েন্ট হিসেবেও ডাকা হয়।  এটি পার্বত্য রেঞ্জের শেষ সীমায় অবস্থিত। এটি লডউইক পয়েন্টের  বিপরীতে অবস্থিত। এটি পঞ্চগণির একটি জনপ্রিয় জায়গা হিসেবে গণ্য হয়।  ১৯৩০ সালে ডঃ মুরারী এটিকে প্রথম আবিষ্কার করেন। একে স্বর্গের সঙ্গে তুলনা করা চলে। এখানে প্রচুর পর্যটক আসেন। এখানে আপনি সুন্দর ও অসাধারন সৌন্দর্য্যের স্বাক্ষী থাকবেন। এখানে পাহাড়টিকে শুঁড় সমেত হাতির মাথা মনে হয়। পঞ্চগণির বাস স্ট্যান্ড থেকে এর দুরত্ব ৭ কিমি। সেখান থেকে বাস বা অটো আপনাকে মেইন গেটে রেখে আসবে। পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল এলিফ্যান্ট হেড পয়েন্টস।

ধোবি জলপ্রপাত

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল ধোবি জলপ্রপাত। প্রকৃতি প্রেমীরা অবশ্যই ধোবী জলপ্রপাতের সৌন্দর্য্যকে উপভোগ করবেন। এই সুন্দর জলপ্রপাতটি লডউইক ও এলফিনস্টোন পয়েন্টকে সংযোগ করেছে। এটি পুরানো মহাবালেশ্বর রোডের উপর অবস্থিত। এর চারিদিকে রয়েছে পাহাড় ও সবুজ পটভূমির মতো সৌন্দর্য্য। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে ভরপুর এটি পঞ্চগণির একটি অসাধারন আকর্ষণীয় ঘোরার জায়গা।

 ভেন্না লেক

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল ভেন্না লেক। এটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে মোড়া পঞ্চগণির একটি অসাধারণ লেক। এটি পঞ্চগণির একটি জনপ্রিয় পর্যটন আকর্ষন। ১৯৪২ সালে শ্রী আপ্পাসাহেব মহারাজ এই ভেন্না লেকটি তৈরী করেছিলেন। এটি প্রাকৃতিক লেক নয়, মানুষ দ্বারা তৈরী করা একটি লেক।  লেকের পাশে গড়ে উঠেছে ছত্রপতি নামাঙ্কিত পার্ক। এখানে লেকে বোট রাইডিংয়ের ব্যবস্থা আছে।  অধিকাংশ সময় লেকে মানুষ গিজগিজ করে।

প্রতাপগড় ফোর্ট

পঞ্চগণির একটি জনপ্রিয় পর্যন কেন্দ্র হল প্রতাপড় দূর্গ। এটি সাতারা জেলায় অবস্থিত। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এর উচ্চতা ৩৫০০ ফুট। দূর্গের ভেতর চারটি লেক রয়েছে। প্রধান গেটের পাশে ওয়াচ টাওয়ার রয়েছে। দূর্গের ভেতর শিবাজী মহারাজের মূর্তি বর্তমান। প্রতাপগড় দূর্গ ওতপ্রোত ভাবে মহারাজ শিবাজির স্মৃতি বহন করে। প্রতাপগড় দূর্গের ভেতর ভবানী মাতার মন্দির বর্তমান। প্রচুর পর্যটক এই এই জায়গাটি চাক্ষুস করতে আসেন।

সিডনি পয়েন্ট

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল সিডনি পয়েন্ট। এখান থেকে আপনি কৃষ্ণা উপত্যকা, কমলগড় দূর্গ, দম দাম ও ওয়াই শহর দেখতে পাবেন। এটি পঞ্চগণি থেকে ৩ কিমি দূরে অবস্থিত। এটি স্যার সিডনি বেকওয়ার্থের নামে নামকরণ করা হয়েছে। এখান থেকে আপনি পান্ডবগড় ও মান্ধারদেও পার্বত্য চূড়া দেখতে পাবেন।  

এলফিনস্টোন পয়েন্ট

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল এলফিনস্টোন পয়েন্ট। এটি পঞ্চগণির সর্বোচ্চ ভিউ পয়েন্ট। পর্যটকরা এখান থেকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের স্বাক্ষী থাকতে পারবেন। এটি এখানকার অন্যতম আকর্ষীয় পর্যটন কেন্দ্র।

কনট পিক

এটি পঞ্চগণির একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র। এটি এই পার্বত্য অঞ্চলের দ্বিতীয় উচ্চতম শৃঙ্গ। এটি পুরাতন মহাবালেশ্বর রোডের উপর অবস্থিত।  এখানে আপনি ভেন্না লেক ও কৃষ্ণা উপত্যকার সৌন্দর্য্যের স্বাক্ষী থাকতে পারবেন। এটি পঞ্চগণির অন্যতম প্রধান আকর্ষণ কেন্দ্র।

ভিলার জলপ্রপাত

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল ভিলার জলপ্রপাত। এটি পঞ্চগণির অন্যতম প্রধান আকর্ষণ।  এখানে  ৪৫০০ ফুট উচ্চতা থেকে জল ঝরে পড়ে। পঞ্চগণি গভীর বনাঞ্চল দ্বারা পরিবৃত। ঝর্ণার জল এখানে একই তাল বজায় রেখে বয়ে চলে।  পর্যটকরা এখানকার আশেপাশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য উপভোগ করে।  

হেলেন পয়েন্ট

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল হেলেন পয়েন্ট। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে ভরপুর এটি একটি অসাধারন আকর্ষণীয় জায়গা। আপনি এখান থেকে নীল উপত্যকা, জলপ্রপাত ও এই অঞ্চল দিয়ে বহমান কৃষ্ণা নদী দেখতে পাবেন। এটি এখানকার রবারস কেভ,গাভালনি পয়েন্টের জন্য বিখ্যাত।   

লিঙ্গমালা জলপ্রপাত

পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল লিঙ্গমালা জলপ্রপাত। এটি পঞ্চগণির ও পুনে রোডের উপর অবস্থিত। এটি ৫০০ ফুট উপর থেকে ঝড়ে পড়ে। এখানে ঝর্ণার জল একটা ছন্দে বয়ে চলেছে। পরিবার ও বন্ধু বান্ধব নিয়ে পিকনিক করার জন্য এটি আদর্শ জায়গা। ঝর্ণার জল ঝড়ে পড়ার পর এটি ভেন্না উপত্যকায় চলে যায়। এটি মহারাষ্ট্রের অন্যতম জনপ্রিয় জলপ্রপাত। পর্যটকরা এখানকার আশেপাশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যক উপভোগ করে।  

মহাবালেশ্বর

এটি পঞ্চগণির অন্যতম প্রধান আকর্ষণ কেন্দ্র। পঞ্চগণির কাছাকাছি মহাবালেশ্বর হল জনপ্রিয় একটি হিল স্টেশন। জনপ্রিয় এই পার্বত্য শহরটি মহারাষ্ট্রের সাতারা জেলায় অবস্থিত। মহাবালেশ্বর ও পঞ্চগণিকে যমজ পার্বত্য শহর বলা হয়। এটি পঞ্চগণি থেকে ২০ কিমি দূরে অবস্থিত। পঞ্চগণির অন্যতম একটি অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান হল মহাবালেশ্বর।পঞ্চগণির পুরো অঞ্চলটাই স্বর্গের সৌন্দর্য্যের স্বরূপ। পাহাড়, জলপ্রপাত, নদী,সবুজ প্রেক্ষাপটের সমাহারে এখানকার সৌন্দর্য্যের ভান্ডার সম্পূর্ণ হয়েছে। পঞ্চগণি পর্যটকদের কাছে অতি পরিচিত পর্যটন কেন্দ্র। এখানে আপনি পাহাড়,উপত্যকা সহ অসাধারণ সৌন্দর্য্যের স্বাক্ষী থাকবেন।

এছাড়াও পঞ্চগণিতে ঘোরার আরও জায়গা রয়েছে। নীচে নামগুলি দেওয়া হল।  

অন্যান্য ঘোরার জায়গা

  • ·        কেটে’স পয়েন্ট
  • ·        ধোম ধাম
  • ·        কমলগড় দূর্গ
  • ·        রাজপুরী গুহা
  • ·        কাশ প্ল্যাটু
  • ·        হ্যারিসন ফোলি
  • ·        ওয়াই
  • ·        উইলসন পয়েন্ট
  • ·        ম্যাপরো গার্ডেন
  • ·        চিনাম্যান জলপ্রপাত
  • ·        বেবিংন্টন পয়েন্ট
  • ·        অথার্স সিট
  • ·        দেবরাই আর্ট ভিলেজ
  • ·        পঞ্চগঙ্গা মন্দির
  • ·        ডেভিল’স কিচেন
  • ·        ইত্যাদী

কিভাবে পৌছাবেন

গাড়ী

পঞ্চগণি যাওয়ার জন্য আপনি পুনে/মুম্বাই/নবি মুম্বাই/নাসিক/কোলাপুর/লোনেভালা থেকে একটি গাড়ী ভাড়া করতে পারেন সহজেই। ঠিক উল্টোভাবে পঞ্চগণি থেকে পুনে/মুম্বাই/নবি মুম্বাই/নাসিক/কোলাপুর/লোনেভালা যাওয়ার গাড়ী পাবেন। রাস্তা মোটামুটি ভালই।  এই রাস্তায় আপনি সহজেই যাতাযাত করতে পারবেন।

বাস

এখানে পুনে/মুম্বাই/নবি মুম্বাই/লোনেভালা সহ আশেপাশের অঞ্চলে যেতে হলে প্রচুর স্টেট বাস সার্ভিস ও প্রাইভেট বাস সার্ভিস রয়েছে। এর পাশাপাশি পুনে/মুম্বাই/নবি মুম্বাই/লোনেভালা থেকে পঞ্চগণি আসতে হলে সহজেই বাস পাবেন।

ট্রেন

কলিকাতা থেকে ট্রেন

কলিকাতা থেকে পঞ্চগণির মধ্যে কোনো সরাসরি ট্রেন নেই। সবচেয়ে ভাল, প্রথমে আপনি পুনে যান, এরপর সেখান থেকে পঞ্চগণি যাওয়ার অনেক বাস ও গাড়ি রয়েছে। পুনে থেকে পঞ্চগণির দুরত্ব ৯৯ কিমি।

·        হাওড়া – পুনে  এসি দুরন্ত এক্সপ্রেস ১২২২২(দুরন্ত) হাওড়া..সকাল ৮.২০- পুনে  সকাল ১১.৪৫, সপ্তাহে ২ দিন, সময় ২৭.২৫ ঘন্টা।

·        আজাদ হিন্দ এক্সপ্রেস ১২১৩০(সুপার ফাস্ট) ..হাওড়া ..রাত ৯.৪৫- পুনে  সকাল ৬.৫০, সপ্তাহে প্রতি দিন, সময় ৩৩.০৫ ঘন্টা।

·        সাঁতরাগাছি-পুনে হামসফর এক্সপ্রেস ২০৮২২(হামসফর).. সাঁতরাগাছি.. রাত ৬.২৫-পুনে  সকাল ২.৪৫, সপ্তাহে ১দিন, সময় ৩২.২০ ঘন্টা।

দিল্লী থেকে ট্রেন

·        গোয়া এক্সপ্রেস ১২৭৮০(সুপার ফাস্ট) হজরত নিজামুদ্দিন .. দুপুর ৩.০০- পুনে  বিকেল ৪.২০, সপ্তাহে প্রতি দিন, সময় ২৫.২০ ঘন্টা।

·        হজরত নিজামুদ্দিন – পুনে  এসি দুরন্ত এক্সপ্রেস ১২২৬৪(দুরন্ত) হজরত নিজামুদ্দিন.. সকাল ১০.৫৫- পুনে  সকাল ৭.১০, সপ্তাহে ২ দিন, সময় ২০.১৫ ঘন্টা।

মুম্বাই থেকে ট্রেন

·        মুম্বাই ছত্রপতি শিবাজি মহারাজ টার্মিনার্স-পুনে ইন্টার সিটি ১২১২৭(সুপার ফাস্ট) .. ছত্রপতি শিবাজি মহারাজ টার্মিনার্স..সকাল ৬.৫০-পুনে  সকাল ৯.৩০, সপ্তাহে প্রতিদিন, সময় ২.৪০ ঘন্টা।

·        ইন্দ্রায়ণী সুপার ফাস্ট এক্সপ্রেস ২২১০৫(সুপার ফাস্ট).. ছত্রপতি শিবাজি মহারাজ টার্মিনার্স..সকাল ৫.৪০-পুনে সকাল ৯.০৫, সপ্তাহে প্রতি দিন, সময় ৩.২৫ ঘন্টা।

ব্যাঙ্গালুরু থেকে ট্রেন

·        কর্ণাটক সম্পর্কক্রান্তি এক্সপ্রেস ১২৬২৯(সম্পর্কক্রান্তি এক্সপ্রেস) ..যশবন্তপুর..দুপুর ১.৫৫- পুনে সকাল ৮.৪৫, সপ্তাহে ২ দিন, সময় ১৮.৫০ ঘন্টা।

বিমানবন্দর

পুনে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পঞ্চগণি বিমানবন্দরের দুরত্ব ১১২ কিমি।

খাদ্য:

পুরী,ডাল, ভাত,সব্জি,রোটি,ইডলী,ধোসা, চিকেন ইত্যাদী এখানে সহজেই মেলে। খাওয়ারের দাম একটু বেশী।

স্পেশল খাওয়ার:

  • স্ট্রবেরী
  • মিল্ক সেক
  • চানা মশালা
  • বড়াপাভ
  • চাট
  • মহারাষ্ট্রিয়ান থালি
  • চিক্কি
  • পুরন পোলি
  • ভারলি বাঙ্গি
  • ইত্যাদী

পঞ্চগণিতে কিছু রেস্ট্রুরেন্টের নাম

  • পঞ্চগণি কাফেটিয়া
  • পঞ্জাবি ভিলেজ রেস্ট্রুরেন্ট
  • গোকুল’স ফুড প্ল্যানেট
  • সিতাই গার্ডেন রেস্ট্রুরেন্ট
  • রেইন ফরেস্ট বিলাস এন্ড  রেস্ট্রুরেন্ট
  • হাঙ্গার ডেস্টিনেশন রেস্ট্রুরেন্ট
  • রসোই গুজরাটি থালি
  • পুরোহিত’স নমস্তে
  • পুরোহিত’স নমস্তে ভেজ শপ
  • ফুড অ্যাফেয়ার্স
  • হোটেল সম্রাট পঞ্চগণি
  • জাফর ভাই রেস্ট্রুরেন্ট
  • আকবর’স আলি পরোটা হাউজ
  • পঞ্চগণি ফাস্ট ফুড
  • ডিপ্লোমাট কাফে
  • রেড সী রেস্ট্রুরেন্ট
  • সিজলিং সিগ্ধি
  • পাভ ভাজি সেন্টার
  • অপ্সরা হোটেল
  • ফুড ভিলে রেস্ট্রুরেন্ট
  • ইত্যাদী

স্থানীয় যানবাহন

  • অটো
  • বাস
  • ক্যাব

নিকটবর্তী ঘোরার জায়গা

  • নাসিক ৩১৬ কিমি
  • পুনে ৯৯ কিমি
  • মহাবালেশ্বর ২০ কিমি
  • ইলোরা ৩৪৫ কিমি
  • আমেদনগর ২১৪ কিমি
  • মুম্বাই ২৪২ কিমি
  • কোলাপুর ১৭০ কিমি
  • নবি মুম্বাই ২২১ কিমি
  • লোনেভালা ১৬২ কিমি
  • ঔরঙ্গাবাদ ৩২৮ কিমি
  • শোলাপুর ২৬৭ কিমি
  • গোয়া ৩৮৯ কিমি