১) কোষ্ঠবদ্ধতা (কনসটিপেনসন) : পবনমুক্তাসন, ভূজাঙ্গাসন, ধনুরাসন, অর্ধকূর্মাসন, উত্থানপদাসন, শলভাসন, অর্ধচন্দ্রাসন, ময়ূরাসন, বিপরীতকরণী, উড্ডীয়ান, অশ্বিনী মুদ্রা, যোগমুদ্রা, ভস্ত্রিকা।

২) পেটে বায়ু ( গ্যাস ) : পবনমুক্তাসন, অর্ধকূর্মাসন, অগ্নিসার, যোগমুদ্রা, উড্ডীয়ান।

৩) অম্ল ও অজীর্ণ (অ্যাসিডিটি ও ইনডাইজেশন ) : ভূজঙ্গাসন, পবনমুক্তাসন, অর্ধকূর্মাসন, যোগমুদ্রা, মহামুদ্রা, উড্ডীয়ান, ভস্ত্রিকা, অগ্নিসার, নৌলী।

৪) আমাশয় (ডিসেন্ট্রি) : ভুজঙ্গাসন, পবনমুক্তাসন, অর্ধকুর্মাসন, পশ্চিমোত্তানাসন, জানুশিরাসন, উত্থানপদাসন, যোগমুদ্রা, সহজ অগ্নিসার।

৫) ক্ষুধামান্দ্য (লস অফ অ্যাপিটাইট বা অ্যানোরেক্সিয়া) : ভুজঙ্গাসন, পবনমুক্তাসন, অর্ধকূর্মাসন, যোগমুদ্রা, কপালভাতি, উড্ডীয়ান নৌলী।

৬) সর্দি ও কাশি (সাসসেপটিবিলিটি টু কাফ অ্যান্ড কোল্ড ) : ভুজঙ্গাসন, শশঙ্গাসন, সর্বাঙ্গসন, হলাসন, মৎস্যাসন , বদ্ধপদ্মাসন, উষ্ট্রাসন, উড্ডীয়ান, কপালভাতি।

৭) হাঁপানি (অ্যাজমা) : পবনমুক্তাসন, ভুজঙ্গাসন, ধনুরাসন, বদ্ধপদ্মাসন, উড্ডীয়ান, উস্ট্রাসন, মৎস্যাসন,{ অধমুখ-মৎস্যাসন, বিপরীত মৎস্যাসন } , কপালভাতি।

৮) স্বপ্নদোষ / নৈশকালীন নির্গমন / ঘুমন্ত-নিদ্রারত রাগমোচন / নিদ্রারতি ( Nocturnal emission, sleep orgasm ) : ভদ্রাসন, সর্বাঙ্গাসন, মৎস্যাসন , শলভাসন, শীর্ষাসন, বিপরীতকরণী, অশ্বিনীমুদ্রা, উড্ডীয়ান।

৯) টনসিলের দোষ (টনসিলাইটিস): শশঙ্গাসন, হলাস, সর্বাঙ্গাসন, সিংহাসন, উষ্ট্রাসন।

১০) বহুমূত্র (ডায়াবেটিস) : জানুশিরাসন, পশ্চিমোত্তানাসন, পদহস্তাসন, অর্ধকূর্মাসন, পবনমুক্তাসন, শীর্ষাসন, উড্ডীয়ান, নৌলী, মহামুদ্রা, সূর্য নমস্কার, কপালভাতি।

১১) অধিক রক্তচাপ (হাই-ব্লাডপ্রেসার) : সুখাসন, যষ্টিআসন, শবাসন, শীতলী প্রাণায়াম।

১২) অনিদ্রা (ইনসোমনিয়া) : সূর্য নমস্কার, গোমুখাসন, শবাসন, মহামুদ্রা, শীতলী অথবা সূর্যভেদ প্রাণায়াম।

সূর্য নমস্কার

১৩) মাসিকের পর বেদনা (ইডসেমনোরিয়া ) : ভুজঙ্গাসন, ভদ্রাসন, সুপ্তভদ্রাসন, পবনমুক্তাসন, সর্বাঙ্গাসন, অশ্বিনীমুদ্রা, বিভক্তপদ পশ্চিমোত্তাসন (ডান পা যত দূর সম্ভব ডান পাশে এবং বাঁ পা যতদূর সম্ভব বাঁ পাশে ছড়িয়ে পশ্চিমোত্তাসন করা ) , শশঙ্গাসন, মৎস্যাসন , বৃষাসন।

১৪) অতিস্রাব (মেনোরাজিয়া) : ভুজঙ্গাসন, সুপ্তভদ্রাসনে অশ্বিনীমুদ্রা, উত্থিতপদাসন, বিপরীতকরণী, বিপরীতকরণীতে অশ্বিনীমুদ্রা, শশঙ্গাসন, মৎস্যাসন , সর্বাঙ্গাসন।

১৫) মাসিক আদৌ না হওয়া (এমেনোরিয়া ) : এবং অতি অল্প মাসিক (অলিগোমেনোরিয়া) ভুজঙ্গাসন, পবনমুক্তাসন, সর্বাঙ্গাসন, হলাসন, শশঙ্গাসন, মৎস্যাসন , উত্থানপদাসন, যোগমুদ্রা, ভদ্রাসন, উড্ডীয়ান।

১৬) শ্বেতপ্রদর (লিউকোরিয়া ) : অশ্বিনীমুদ্রা, পবনমুক্তাসন, বিপরীতকরণী ও সুপ্তভদ্রাসনে অশ্বিনীমুদ্রা, গোমুখাসন, মত্স্যাসন, শীতলী ও সূর্যভেদ প্রাণায়াম ইত্যাদি।

বিশেষ ক্ষেত্রে ডাক্তারের অভিমত গ্রহণের পর অভিজ্ঞ যোগ শিক্ষকের পরামর্শ নেবেন।

১৭) উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য : ধনুরাসন, শশঙ্গাসন, হলাসন, মত্স্যাসন, উষ্ট্রাসন, পশ্চিমোত্তাসন, পদহস্তাসন, ষষ্টিআসন, চক্রাসন।

১৮) তোতলামি (স্ট্যামারিং) : সিংহাসন, ভ্রামরী, মত্স্যাসন ইত্যাদি। এ ছাড়া কন্ঠে চিবুক লাগিয়ে (জলন্ধরে) কয়েক সেকেন্ড বসে থাকলে উপকার পাওয়া যায়।

১৯) কোমরে বাত (ব্যাক এ্যক) : ভুজঙ্গাসন, শলভাসন, ধনুরাসন, উষ্ট্রাসন, অর্ধচন্দ্রাসন, অর্ধমত্স্যন্দ্রাসন।

২০) গেঁটে বাত অথবা সন্ধিস্থলে ব্যথা (গাউট অ্যান্ড রিউম্যাটিজম ) : বজ্রাসন, উত্কটাসন, অর্ধমত্স্যন্দ্রাসন, ষষ্টিআসন, তালাসন, কোণাসন, বক্রাসন ইত্যাদি। দ্র : আসনের সঙ্গে কোয়াড্রিসেপস ড্রিল, সোল্ডার স্রাগিং, নেক এক্সারসাইজ ইত্যাদি খালি হাতে ব্যায়াম করলে উপকার পাওয়া যায়।

২১) অর্শ (পাইলস) : শোয়া অথবা বসা অবস্থায় অশ্বিনীমুদ্রা। এ ছাড়া পবনমুক্তাসন, বিপরীতকরণী ও সুপ্তভদ্রাসন করা অবস্থায় অশ্বিনীমুদ্রা বিশেষ উপকারী।

২২) ইস্কিমিয়া (হার্ট ডিজিস) : যষ্টিআসন, বক্রাসন, গোমুখাসন, শবাসন, শীতলী ও সূর্যভেদ প্রাণায়াম।

২৩) কাঁধের সন্ধিস্থল শক্ত (ফ্রোজেন সোল্ডার ) : তালাসন, কোণাসন, অর্ধমত্স্যন্দ্রাসন, ষষ্টি আসন।

২৪) থাইরয়েড সমস্যা : সিংহাসন, (জলন্ধর-সহ) শলাসন, মৎস্যাসন , হলাসন, উষ্ট্রাসন, অর্ধমত্স্যন্দ্রাসন।

২৫) স্মৃতিশক্তি হ্রাস (লস অফ মেমোরি) : শলাসন, মৎস্যাসন , সর্বাসন, উষ্ট্রাসন, শীর্ষাসন, হলাসন, সূর্যভেদ প্রাণায়াম, ভ্রামরী ও শবাসন।

সূত্র :
যোগাসনে রোগ আরোগ্য , রোগারোগ্যে যোগব্যায়াম , যোগ সন্দর্শন , যোগ ব্যায়াম।