ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির তান্ডব :

সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার বুকে ঘটে যাওয়া সুনামির তান্ডব নিয়ে সারা বিশ্ব আলোরিত। আরেকবার প্রমানিত হল প্রকৃতির কাছে মানুষ কত অসহায়।সুপ্ত আগ্নেয়গিরি জেগে ওঠা ও তার প্রভাবে সুনামি আছড়ে পড়া এটা সত্যি ব্যতিক্রম নয়। ২০১৮ সালের ২২ শে ডিসেম্বর সন্ধ্যা বেলায় ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিমে অবস্হিত জাভা ও দক্ষিণে অবস্হিত সুমাত্র্রা দ্বীপে সুনামি আছড়ে পড়ে। ঘটনাচক্রে দক্ষিণ চিন সাগরে উপস্হিত দেশগুলিতে সমুদ্র উপকূল বরাবর সুনামির দাপট বৃদ্ধমান।

সুনামিতে ক্ষয়ক্ষতি :

সুনামীর প্রকোপে ৪০০ র বেশী মানুষ প্রাণ হারায়।সরকারী হিসেবে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়। কত মানুষ নিঁখোজ হয়। ইন্দোনেশিয়ার ভূতত্ববিদ্ ও আবহাওয়াবিদরা এই সুনামির উপর গবেষণা করেন। অর্থাৎ এর উৎসস্হল কোথায় এটার সন্ধান চলে।

সমুদ্রের নীচে “অনক-কাকাটোয়া” নামক আগ্নেয়গিরির জেগে ওঠার ফলে ভূকম্পন হয়। যার ফলে এই সুনামির সৃষ্ঠি।

পূর্ববর্তী সুনামির তান্ডব :

এর কিছু মাস পূর্বে ২০১৮ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর ইন্দোনেশিয়ার অর্ভ্যন্তরে ৭.৫ রিখটার স্কেল অনুযায়ী ভূকম্প হয়।ভূমিকম্পনের সঙ্গে সুনামিও হয়। প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়। ইন্দোনেশিয়ার বিপর্যয় দপ্তরের হিসেব অনুযায়ী ২০০০ এর বেশী মানুষ প্রাণ হারায়। ৪৪০০ জন সাংঘাতিক ভাবে আহত হয়। দেশের মধ্যবর্তী অঞ্চলে প্রায় দেড় কোটি মানুষ ভূক্তভোগী হয়। প্রায় ৬৮০০০ হাজার বাড়ি ধ্বংস হয়।